শিক্ষা নিয়ে গড়ব দেশ, শেখ হাসিনার বাংলাদেশ।

Phone(+88) 0303656266

EIIN105061

কাঁধের চোটটা বেশ কয়েক দিন ধরে ভোগাচ্ছিল। তবে চোটটা যে বড় আকার ধারণ করে ইউএস ওপেনে শেষ পর্যন্ত খেলতেই দেবে না, এটা হয়তো নোভাক জোকোভিচ নিজেও ভাবেননি। সে ভয়টাই সত্যি হয়েছে। কাঁধের চোট নিয়ে চতুর্থ রাউন্ডে সুইস তারকা স্টানিসলাস ভাভরিঙ্কার সঙ্গে খেলতে নেমেছিলেন ‘জোকার'। তৃতীয় সেট চলতে না চলতেই চোটের কাছে হার মানলেন তিনি। অবসর নিলেন। আর সে সুযোগে কোয়ার্টারে উঠে গেলেন ভাভরিঙ্কা। অবশ্য অবসর নেওয়ার আগেই দুই সেট হেরে বসেছিলেন তিনি। ৬-৪, ৭-৫ গেমে দুই সেট জেতার পর তৃতীয় সেটেও ২-১ গেমে এগিয়ে ছিলেন ভাভরিঙ্কা। তৃতীয় সেটটা জিততে না পারলে এমনিতেই ম্যাচটা হেরে বসতেন বর্তমান চ্যাম্পিয়ন। কিন্তু সে পর্যন্ত খেলার সুযোগই পেলেন না। অথচ ২০১৬ সালের ইউএস ওপেন ফাইনাল হারের বদলা নিতে এবার মাঠে নেমেছিলেন জোকোভিচ। ২০১৬ সালে আর্থার অ্যাশে ফাইনাল ম্যাচে এই ভাভরিঙ্কার সঙ্গেই ৭-৬, ৪-৬, ৫-৭, ৩-৬ সেটে হেরে বসেছিলেন তিনি। কাঁধের চোট সেই বদলাটা নিতে দিল না! ক্যারিয়ারে ওর পর আর কোনো গ্র্যান্ড স্ল্যাম জিততে পারেননি ভাভরিঙ্কা। আর ওদিকে গত তিন বছরে জোকোভিচ নিজেকে ছাড়িয়ে গেছেন প্রতি মুহূর্তে। ২০০৬ সালের পর এই প্রথমবারের মতো ইউএস ওপেনের কোয়ার্টার ফাইনালের আগেই বিদায় নিলেন জোকোভিচ। জোকোভিচকে ‘বিদায়’ করিয়ে দেওয়ার জন্য স্বদেশি তারকা রজার ফেদেরারের কাছে একটা ধন্যবাদ হয়তো চাইতেও পারেন ভাভরিঙ্কা। জোকোভিচকে আটকানো না গেলে, আর ওদিকে নিজের ম্যাচগুলো ফেদেরার ঠিকভাবে জিতলে সেমিতেই দেখা হয়ে যেত ফেদেরার-জোকোভিচের। ২০১২ সালের উইম্বলডনের পর কোনো গ্র্যান্ড স্লামে জোকোভিচকে হারাতে পারেননি ফেদেরার! কিছুদিন আগেও মহাকাব্যিক এক উইম্বলডন ফাইনালে ৩৮ বছর বয়সী সুইস তারকাকে হারিয়েছেন জোকোভিচ। পথের 'কাঁটা' সরানোর জন্য স্বদেশি ভাভরিঙ্কাকে একটা ধন্যবাদ দিতেই পারেন ফেদেরার! তবে এভাবে জিতে ভাভরিঙ্কা নিজেও সন্তুষ্ট নন, ‘নোভাক আমার অনেক ভালো বন্ধু। অসাধারণ একজন চ্যাম্পিয়ন সে। অবশ্যই এভাবে জিতে আমার ভালো লাগছে না। গোটা ক্যারিয়ারে আমরা অসাধারণ কিছু ম্যাচ খেলেছি। এভাবে কেউ ম্যাচ শেষ করতে চায় না।’ তবে চোটের কারণে কিন্তু এবারই প্রথম অবসর নিলেন না জোকোভিচ। এর আগে গিলের্মো কোরিয়ার বিপক্ষে ২০০৫ ফ্রেঞ্চ ওপেনে অবসর নিয়েছিলেন তিনি। ২০০৬ সালের ফ্রেঞ্চ ওপেন ও ২০০৭ সালের উইম্বলডনে অবসর নিয়েছিলেন রাফায়েল নাদালের বিপক্ষে ম্যাচ দুটিতে। ২০০৯ সালের অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে অবসর নিয়েছিলেন অ্যান্ডি রডিকের বিপক্ষে ম্যাচটায়। সর্বশেষ ২০১৭ সালের উইম্বলডনে টমাস বার্ডিচের বিপক্ষে অবসর নিয়েছিলেন তিনি। এদিকে চতুর্থ রাউন্ডে বেলজিয়ান তারকা ডেভিড গোফিনকে ৬-২, ৬-২, ৬-০ সেটে উড়িয়ে দিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছেন রজার ফেদেরার। ভাভরিঙ্কা ছাড়াও কোয়ার্টারে ফেদেরারের সঙ্গী হয়েছেন দিমিত্রি মেদভেদেভ ও গ্রিগর দিমিত্রভ। কোয়ার্টারে দিমিত্রভের বিপক্ষে লড়বেন ফেদেরার। এদিকে মহিলা এককে কোয়ার্টারে ফাইনালে উঠেছেন সেরেনা উইলিয়ামস, তবে হেরে গেছেন দ্বিতীয় বাছাই অ্যাশলি বার্টি।